Why Mamata Banerjee Reached Abhishek Banerjee House Before Cbi Arrived? Tmc Chief Clears The Air : অভিষেকের বাড়িতে যান নাতনির জন্যই, জানালেন মমতা

Share Now





হাইলাইটস

  • কয়লা পাচার মামলার তদন্তে রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জিজ্ঞাসাবাদ করতে ভোটের ঠিক মুখে তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে হানা দিয়েছিল সিবিআই।
  • সিবিআই অফিসাররা পৌঁছনোর কিছুক্ষণ আগেই ওই বাড়িতে পৌঁছে যান অভিষেকের পিসি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
  • কিন্তু সিবিআই যাওয়ার আগে তিনি কেন অভিষেকের বাড়িতে ছুটে গিয়েছিলেন?

এই সময়: কয়লা পাচার মামলার তদন্তে রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জিজ্ঞাসাবাদ করতে ভোটের ঠিক মুখে তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে হানা দিয়েছিল সিবিআই। সিবিআই অফিসাররা পৌঁছনোর কিছুক্ষণ আগেই ওই বাড়িতে পৌঁছে যান অভিষেকের পিসি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু সিবিআই যাওয়ার আগে তিনি কেন অভিষেকের বাড়িতে ছুটে গিয়েছিলেন?

ঘটনার মাস দুয়েক বাদে সেই রহস্য উন্মোচন করলেন মুখ্যমন্ত্রী নিজেই। বৃহস্পতিবার এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে তৃণমূলনেত্রী জানিয়েছেন, পুরোটাই ছিল কাকতালীয়। আগাম পরিকল্পনা করে তিনি সেখানে যাননি। তাঁর কথায়, ‘সে দিন ওই রাস্তা দিয়ে আমার যাওয়ার কথা ছিল না। হঠাৎ ঠিক করলাম, ওই রাস্তা দিয়ে যাব। তার পর অভিষেকের বাড়ির সামনে দেখি অনেক মিডিয়া দাঁড়িয়ে। সিবিআইয়ের বিষয়টি জানতাম। তবে ওই জন্য যাইনি। তা হলে তো অনেকক্ষণ বসে থাকতাম।’ কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে মমতা বলেন, ‘আসলে অভিষেকের বাচ্চাটা সকাল থেকে মন খারাপ করে বসেছিল। কারণ, সে সকালে তার টিচারকে ফোন করলেও তিনি ফোন কেটে দিয়েছিলেন। কান্নাকাটি করছিল। মুষড়ে পড়েছিল। আমি তাই গিয়েছিলাম। গিয়ে জিজ্ঞেস করলাম, কেন কাঁদছিস? ও বলে টিচার ফোন কেটে দিয়েছে।’ মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, এই ঘটনা অমানবিক। এই সব ঘটনা বাচ্চাদের উপর প্রভাব ফেলে। পরক্ষণেই অবশ্য তিনি বলেন, ‘স্কুলের কোনও দোষ নেই। হয়তো ওই টিচার ভেবেছে অভিষেকের বাড়িতে সিবিআই গিয়েছে তাই ফোন কেটে দিয়েছে। অভিষেকের বাড়িতে সিবিআই যাবে তো বাচ্চার ফোন কাটবে না? বাচ্চাটা বলল, মা তো কিছু করেনি। তা হলে সিবিআই আসবে কেন?’


রাজ্য বিজেপির সহ-সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার অবশ্য মুখ্যমন্ত্রী ও অভিষেককে কটাক্ষের সুরে বলেছেন, ‘বহিরাগত বৌমার জন্য পিসির যে উৎকণ্ঠা হবে, সেটাই তো স্বাভাবিক। কিন্তু ওই বাচ্চা মেয়েটার কথা কি তার বাবা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিজের খেয়াল ছিল?’


এ ক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, বিজেপির লক্ষ্য আসলে অভিষেকের ডিভোর্স করে দেওয়া। রুজিরা এবং অভিষেককে নির্দোষ ঘোষণা করে তিনি বলেন, ‘ও (রুজিরা) ব্যাঙ্ককে জন্মেছে তো কী করা যাবে? ওরা প্রেম করে বিয়ে করেছে। প্রেম করার সময় কেউ কি জিজ্ঞেস করে, কোথায় জন্মেছে? দেখাশোনা করে বিয়ে করলে এই সব হয়। ওর পদবী কী, ওর বাবা-র নাম কী এই সব নিয়ে বলছে। উদ্দেশ্য, বিবাহবিচ্ছেদ করে দাও। এই ভাবে ওদের ডিপ্রেসড করে দাও। তবে অভিষেক এই প্রজন্মের ছেলে। ও বলেছে, এই লড়াই ও লড়ে নেবে।’ কয়লা পাচারকাণ্ড নিয়ে তিতিবিরক্ত মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এই কয়লায় আমাদের বাড়ির ছেলে জড়িত নয়। কয়লা তো কেন্দ্রীয় সরকারের। এক কেন্দ্রীয় সরকারের মন্ত্রীর ছেলে যুক্ত রয়েছে।’ অভিষেকও এদিন আর একটি টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘সিবিআই হানার বিষয়টি আমার স্ত্রী এবং কন্যার অভ্যাস হয়ে গিয়েছে। ওরাও এখন বিষয়টি জেনে গিয়েছে।’

শুভেন্দু কখনও আমার বিশ্বস্ত ছিল না: মমতা
কয়লাপাচার কাণ্ডে অভিযুক্ত বিনয় মিশ্র প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী এদিন টিভি সঞ্চালককে কিছুটা বিরক্তি প্রকাশ করে বলেন, ‘এই সব নাম করছ কেন? যাকে আমি চিনি না তার সম্পর্কে কেন বলতে যাব। এরা কেউ তৃণমূল নেই। কৈলাস বিজয়বর্গীয়কে জিজ্ঞেস করো, এরা কারা।’

‘প্ল্যান করে একজন মহিলাকে পাঠিয়েছিল BJP’, অভিযোগ মমতার
অভিষেক অবশ্য আর এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে বিনয়ের পাশেই দাঁড়িয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, বিনয়কে তিনি দল থেকে বহিষ্কার করছেন না। কারণ, তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ এখনও প্রমাণিত হয়নি। তাঁর প্রশ্ন, মুকুল রায়, শোভন চট্টোপাধ্যায়, এদের বিরুদ্ধেও সারদা, নারদা মামলার অভিযোগ রয়েছে। মুকুল রায়রা যদি বিজেপির পদাধিকারী হতে পারেন, তা হলে বিনয়ের দোষ কোথায়?

মমতাই সরকার গড়বেন, পদ্মফুল চোখে সর্ষে ফুল দেখবে: অভিষেক
টাটকা ভিডিয়ো খবর পেতে সাবস্ক্রাইব করুন এই সময় ডিজিটালের YouTube পেজে। সাবস্ক্রাইব করতে এখানে ক্লিক করুন।







Source link