vaccination drive: হাসপাতাল থেকেই চুরি গেল করোনা টিকা – 320 doses of covaxin goes missing from a government hospital in jaipur

Share Now





হাইলাইটস

  • হাসপাতাল থেকেই চুরি হয়ে গেল করোনা টিকা।
  • রাজস্থানের জয়পুরের একটি সরকারি হাসপাতাল থেকে কোভ্যাকসিনের ৩২০টি ডোজ চুরি হয়ে গিয়েছে।
  • ইতিমধ্যেই চুরি যাওয়া টিকাগুলি উদ্ধার করতে তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: দেশজুড়ে বাড়ছে করোনা। এই পরিস্থিতিতে টিকাকরণে জোর দিচ্ছে কেন্দ্র। কিন্তু হাসপাতাল থেকেই চুরি হয়ে গেল করোনা টিকা। রাজস্থানের জয়পুরের একটি সরকারি হাসপাতাল থেকে কোভ্যাকসিনের ৩২০টি ডোজ চুরি হয়ে গিয়েছে। ইতিমধ্যেই চুরি যাওয়া টিকাগুলি উদ্ধার করতে তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

সূত্রের খবর, জয়পুরের এইচবি কনৌটিয়া হাসপাতালের হাতে সোমবার করোনা টিকার ৪৮৯টি ডোজ তুলে দেওয়া হয়। কিন্তু পরে কতগুলি টিকা রয়েছে তা দেখতে যাওয়ার সময় হাসপাতালের কর্মীরা দেখেন ৩২০টি ডোজ কম রয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করে সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। নিরাপত্তা কর্মীদের উপস্থিতি সত্ত্বেও কীভাবে চুরি হল টিকা, তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। খতিয়ে দেখা হচ্ছে CCTV ফুটেজও।

দেশের একাধিক রাজ্য থেকে অভিযোগ উঠছে, তাদের হাতে পর্যাপ্ত টিকা নেই। এই পরিস্থিতিতে টিকা চুরি যাওয়া অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। টিকার কালোবাজারি এড়াতে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে রাখা হচ্ছে টিকাগুলি। কিন্তু এই চুরির ঘটনা টিকা সুরক্ষার উপর তুলে দিচ্ছে প্রশ্ন।

ভয়ংকর হারে বাড়ছে করোনা, একদিনে আক্রান্ত ১.৮৪ লাখ!
দেশজুড়ে আছড়ে পড়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ (Corona Update)। ভয়ংকর হারে বাড়ছে দৈনিক সংক্রমণ। ক্রমশই জটিল আকার নিচ্ছে করোনা চিত্র। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এক লাখ ৮৪ হাজার ৩৭২ জন। একদিনের কোভিডের বলি হয়েছে ১০২৭ জন। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের বুলেটিন জানান দিচ্ছে, এই মুহুর্তে দেশে চিকিৎসাধীন করোনা রোগীর সংখ্যা ১৩ লাখ ৬৫ হাজার ৭০৪। দেশে মোট মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ৭২ হাজার ৮৫ জনের। ওয়ার্ল্ডোমিটারের হিসেব জানাচ্ছে, বিশ্বের মধ্যে আক্রান্তের নিরিখে আমেরিকার পরেই রয়েছে ভারত। মোট আক্রান্তের সংখ্যা এক কোটি ৩৮ লাখ ৭৩ হাজার ৮২৫। এই পরিস্থিতিতে ভারতের বাজারে আসছে রুশ ভ্যাকসিন স্পুটনিক ভি (Sputnik V)। রাশিয়ার ভ্যাকসিন ব্যবহারে ছাড়পত্র দিল DCGI। সোমবারই রুশ ভ্যাকসিনকে অনুমোদন দেয় কেন্দ্রীয় সরকার।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি মহারাষ্ট্রে। ইতিমধ্যেই সেখানে ১৫ দিনের কার্ফু ঘোষণা করা হয়েছে। লকডাউনের পথে হাঁটা হবে কিনা তা নিয়ে এখনও চিন্তাভাবনা চলছে। কিন্তু গোটা দেশে যেভাবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। তাতে আবারও কি দেশজুড়ে লকডাউনের সম্ভাবনা রয়েছে? পরিস্থিতির গুরুত্ব বুঝে স্থানীয় স্তরে কার্ফু জারি হলেও সম্পূর্ণ লকডাউনের পথে আর হাঁটবে না দেশ। রাজ্যগুলির সঙ্গে এই নিয়ে পৃথকভাবে কথাও বলছে কেন্দ্র সরকার।

টাটকা ভিডিয়ো খবর পেতে সাবস্ক্রাইব করুন এই সময় ডিজিটালের YouTube পেজে। সাবস্ক্রাইব করতে এখানে ক্লিক করুন।






Source link