Twitter: আইনি যুদ্ধে হার টুইটারের, রক্ষাকবচ বাতিল করল কেন্দ্র – twitter loses legal shield in india

Share Now





হাইলাইটস

  • কেন্দ্র-টুইটার (Twitter) সংঘাতে অবশেষে হার হল সোশ্যাল মিডিয়া সাইটের।
  • জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া (Social Media) প্ল্যাটফর্মগুলির মধ্যে একমাত্র টুইটারই নয়া তথ্যপ্রযুক্তি নিয়মের শর্তপূরণ করেনি।
  • প্রসঙ্গত, নয়া ডিজিটাল নজরদারি বিধি নিয়ে এমনিতেই কেন্দ্রের সঙ্গে সংঘাত চলছিল টুইটারের।

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: কেন্দ্র-টুইটার (Twitter) সংঘাতে অবশেষে হার হল সোশ্যাল মিডিয়া সাইটের। আইনি যুদ্ধে হেরে গেল টুইটার। এক কেন্দ্রীয় সরকারি আধিকারিজ জানিয়েছেন, তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৭৯ ধারায় টুইটার আর আইনি রক্ষাকবচ পাবে না। ফলে এখন যদি আদালতে মামলা হয়, তথ্যপ্রযুক্তি আইনের আওতায় সুরক্ষা পাবে না টুইটার। সোশ্যাল মিডিয়া এই সাইটের রক্ষাকবচ বাতিল করল কেন্দ্র। জানা গিয়েছে, সাম্প্রদায়িক অশান্তিতে ইন্ধন জোগানোর অভিযোগেই টুইটারের আইনি রক্ষাকবচ কেড়ে নিল কেন্দ্র।

জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া (Social Media) প্ল্যাটফর্মগুলির মধ্যে একমাত্র টুইটারই নয়া তথ্যপ্রযুক্তি নিয়মের শর্তপূরণ করেনি। এমনটাই অভিযোগ এনেছিল ভারত সরকার। যে নীতি অনুযায়ী, ভারতের জন্য সোশ্যাল মিডিয়া সংস্থাগুলিকে চিফ কমপ্লায়েন্স অফিসার, রেসিডেন্ট গ্রিভান্স অফিসার নিয়োগ করতে হবে। কিন্তু প্রথম থেকেই সেই নয়া নীতি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়ে পড়ে টুইটার। গত ৫ জুন কেন্দ্রের চূড়ান্ত নোটিশের পর অবশ্য আগের অবস্থান থেকে কিছুটা পিছিয়ে আসে সংস্থা। সুর নরম করে মাইক্রো ব্লগিং সাইট। জানানো হয় নয়া নীতি মেনে চলা হবে। এরপর কেন্দ্রের তরফে সংস্থাকে এক সপ্তাহের মধ্যে শর্ত পূরণ করার কথা জানানো হয়। সেইমতো আশ্বাসও দেয় সংস্থাটি। সেই ঘটনার রেশ ধরে মঙ্গলবার টুইটারের তরফে জানানো হয়, নয়া নীতি নিয়ে কেন্দ্রের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে। নিয়োগ করা হয়েছে অন্তর্বর্তীকালীন চিফ কমপ্লায়েন্স অফিসারও। আশ্বাস দেওয়া হয়, ‘নয়া নীতি পূরণের জন্য সবরকমের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে টুইটার।’ তবে রক্ষাকবচ বাতিলের ফলে এখন যদি আদালতে কোনও মামলা হয়, তথ্যপ্রযুক্তি আইনের আওতায় সুরক্ষা পাবে না টুইটার। কোনও মামলা দায়ের হলে টুইটার নিজেদের মধ্যস্থতাকারী হিসেবে দেখাতে পারবে না। এবরা থেকে টুইটার কেবল ডিজিটাল সাইট হয়েই থাকবে এ দেশে।

প্রসঙ্গত, নয়া ডিজিটাল নজরদারি বিধি নিয়ে এমনিতেই কেন্দ্রের সঙ্গে সংঘাত চলছিল টুইটারের। তার উপর উত্তরপ্রদেশে ঘটে যাওয়া এক প্রবীণ ব্যক্তিকে নিগ্রহের ঘটনায় সাম্প্রদায়িক রূপ দেওয়ার অভিযোগ ওঠে সাইটের বিরুদ্ধে। সেই নিয়ে মঙ্গলবার রাতেই যোগীরাজ্যে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।। তার প্রেক্ষিতেই তাদের আইনি রক্ষাকবচ তুলে নেওয়া হয়েছে বলে দিল্লি সূত্রে খবর। এবার থেকে যাবতীয় পোস্ট এবং ভিডিয়োর উৎস কেন্দ্রকে জানাতে হবে।






Source link