Sher: কাঠ সংগ্রহে গিয়ে মৃত্যু আর নয়, সুন্দরবনের মৎস্যজীবীদের LPG সিলিন্ডার দিল SHER! – sher’s project of providing lpg cylinders to fishermen in sundarban tiger reserve

Share Now





হাইলাইটস

  • চরম দারিদ্রের মধ্যে থেেকও তাঁদের বেঁচে থাকার লড়াই করতে হয় বন্যপ্রাণীদের সঙ্গেও।
  • অনেকক্ষেত্রেই কাঠ সংগ্রহে গিয়ে আর বাড়ি ফেরা হয় না অনেকেরই।
  • সেই সব মানুষদের দুর্দশা ঘোচাতে এগিয়ে এল বাঘ ও অন্যান্য পশুপাখি-প্রকৃতি রক্ষার দাবিতে কাজ করা সংস্থা ‘শের’ (SHER)।

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: কথায় আছে ‘জলে কুমির, ডাঙায় বাঘ’। সুন্দরবনের অসহায় মানুষদের জন্যে কথাটা ১০০ শতাংশ সত্যিই। চরম দারিদ্রের মধ্যে থেেকও তাঁদের বেঁচে থাকার লড়াই করতে হয় বন্যপ্রাণীদের সঙ্গেও। একের পর এক ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্ত সুন্দরবনের মানুষের জীবিকা বলতে জঙ্গল থেকে মধু সংগ্রহ কিংবা নদী থেকে মাছ ধরা। আর সেই মাছ ধরার সময় নৌকা থেকে নেমে কাঠ সংগ্রহ করতে হয় অনেককেই। সেই কাঠ দিয়েই হয় নৌকার ভিতরে রান্না। কিন্তু অনেকক্ষেত্রেই কাঠ সংগ্রহে গিয়ে আর বাড়ি ফেরা হয় না অনেকেরই। কারণ বাঘের শিকার হতে হয় তাঁদের। এবার সেই সব মানুষদের দুর্দশা ঘোচাতে এগিয়ে এল বাঘ ও অন্যান্য পশুপাখি-প্রকৃতি রক্ষার দাবিতে কাজ করা সংস্থা ‘শের’ (SHER)।

সুন্দরবনের মৎস্যজীবীদের রান্নার জন্যে যাতে জঙ্গলে না ঢুকতে না, তাঁরা যাতে নৌকাতেই নিশ্চিন্তে রান্নাটুকু করতে পারেন, তার জন্যে এলপিজি সিলিন্ডার তুলে দেওয়া হল তাঁদের হাতে। ‘শের’-এর পক্ষ থেকে এই উদ্যোগ নেওয়া হল, যা এককথায় নজিরবিহীন। অভাবনীয় বিষয় হল, বন্য প্রাণীদের স্বার্থে কাজ করা সংগঠনটি বারবার অসহায় মানুষদের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়। শুধু তাই নয়, কখনও তাঁরা পৌঁছে যান উম্পুন বিধ্বস্ত সুন্দরবনের প্রত্যন্ত প্রান্তে, কখনও আবার বনকর্মীদের মধ্যে করোনা সংক্রমণ রুখতে তুলে দেওয়া হয় ফেস শিল্ড।

আরও পড়ুন: উম্পুনে গভীর ক্ষত সুন্দরবনে, সাহায্যে হাত বাড়াল SHER!

এবার প্রাথমিকভাবে ১০০ মৎস্যজীবীর হাতে তুলে দেওয়া হল এলপিজি সিলিন্ডার ও স্টোভ। গত ৭ অগস্ট সুন্দরবন টাইগার রিজার্ভের অন্তর্গত বাগনা ও ঝিংগাখালিতে ছোট অবয়বেই সারা হয় এই অনুষ্ঠান। সেখানে উপস্থিত ছিলেন আইএফএস রবিকান্ত সিনহা, আইএফএস তাপস দাস, সুন্দরবন টাইগার রিজার্ভের অ্যাসিটেন্ট ফিল্ড ডিরেক্টর অনিন্দ্য গুহ ঠাকুরতা, বসিরহাটের রেঞ্জ অফিসার বিপ্লব ভৌমিক, ‘শের’-এর কর্তা জয়দীপ কুণ্ডু, বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ কর্মী সুচন্দ্রা কুণ্ডু প্রমুখ। প্রবল এক প্রতিকূল পরিস্থিতিতে এ ধরনের সাহায্য পেয়ে হাসি ফুটল কতগুলো অসহায় মানুষের মুখে।






Source link