Royal Bengal tiger: সুন্দরবনে বাঘের হামলা, মৃত্যু মৎস্যজীবীর – fisherman killed by tiger in sundarban forest

Share Now





হাইলাইটস

  • ফের বাঘের আক্রমণে মৃত্যু হল এক মৎস্যজীবীর।
  • জানা গিয়েছে, তাঁর বাড়ি সুন্দরবন কোস্টাল থানার কুমিরমারি মৃধা পাড়া গ্রামে।
  • অনুমতি ছাড়াই তাঁরা গভীর জঙ্গলে মাছ এবং কাঁকড়া ধরতে গিয়েছিল বলে জানা গিয়েছে।

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: ফের বাঘের আক্রমণে মৃত্যু হল এক মৎস্যজীবীর। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করেই সুন্দরবনের গভীর জঙ্গলে মাছ, কাঁকড়া সংগ্রহ করতে গিয়ে বাঘের হাতে বেঘোরে প্রাণ গেল তাঁর। মৃতের নাম অমল বৈষ্ণব (৪৭)। জানা গিয়েছে, তাঁর বাড়ি সুন্দরবন কোস্টাল থানার কুমিরমারি মৃধা পাড়া গ্রামে। রবিবার ভোর রাতে বন্ধুদের সঙ্গে সুন্দরবনের গভীর জঙ্গলে মাছ কাঁকড়া ধরতে গিয়েছিলেন অমল। সেখানে হঠাৎ জঙ্গল থেকে একটি বাঘ বেরিয়ে এসে ঝাঁপিয়ে পড়ে অমলের উপর। তাঁকে টানতে টানতে জঙ্গলের মধ্যে নিয়ে যায় বাঘটি। পেছন দিক থেকে এসে বাঘের আচমকা হামলায় কাবু হয়ে যায় সে। তখন নৌকার মধ্যেই ছিল তাঁর বাকি সঙ্গীরা। তাঁদের চোখের সামনেই গোটা ঘটনাটি ঘটে। সঙ্গীরাই সঙ্গে সঙ্গে বন দফতর ও গ্রামবাসীদের খবর দেয়। বন দফতরের সহযোগিতায় দেহটি উদ্ধার করে গ্রামে নিয়ে আসা হয়।

পরিবারের সদস্য অকালে চলে যাওয়ায় শোকাহত অমলের আত্মীয়রা। ঘটনায় এলাকা জুড়ে আতঙ্কের ছায়া। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বন দফতর । অনুমতি ছাড়াই তাঁরা গভীর জঙ্গলে মাছ এবং কাঁকড়া ধরতে গিয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। এই ব্যাপারে বারবার সচেতন করার ফলেও উদাসীন সুন্দরবনের বাসিন্দারা। এই কারণেই সুন্দরবন এলাকা জুড়ে নানা জায়গায় মাঝেমধ্যেই বাঘের হামলায় মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে বলে মনে করছে বন দফতর।

এলাকাবাসীর বক্তব্য জীবনের ঝুঁকি নিয়েই তাঁদের জঙ্গলের মধ্যে কাঁকড়া এবং মাছ ধরতে যেতে হচ্ছে। বিকল্প কোনও পেশার সন্ধান না মেলাতেই এখনও এইভাবে মাছ ধরেই জীবিকা নির্বাহ করে এলাকার অধিকাংশ মানুষ। কুমিরমারি গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান দেবাশিস মন্ডল বলেন, ‘সকাল আটটা নাগাদ তাঁরা এই সংবাদ পান। বন দফতর ও গ্রামবাসীদের সহয়াতায় দেহটি উদ্ধার করে আনা হয়। এরপর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা অমলকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।’ দেহের ময়নাতদন্ত হওয়ার পর তাঁর সৎকার করা হবে বলে জানিয়েছেন গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান।






Source link