rituparno Ghosh: ‘তোর কোনও মেসেজ নেই, ঝগড়া হয় না’, আবেগঘন পোস্টে বুম্বার ঋতু-স্মরণ – rituparno ghosh death anniversary prosenjit chatterjee and rituparna sengupta shares message on social media

Share Now





হাইলাইটস

  • আজ পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষের প্রয়াণ দিবস
  • পরিচালকের প্রয়াণ দিবসে ঋতুপর্ণকে নিয়ে আবেগঘন বার্তা দিলেন টলিপাড়ার বুম্বা-ঋতু
  • পরিচালকের প্রয়াণে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করলেন তারকারা

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: তাঁদের দু’জনের কেরিয়ারেই মোড় ঘুরিয়েছেন তিনি। মূল ধারার বাংলা বাণিজ্যিক ছবিতে যখন তাঁরা দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন, তখন সেই স্রোত থেকে তাঁদের তুলে এনে একেবারে অন্য অবতারে রুপোলি পর্দায় হাজির করেছিলেন তিনি। তাঁরা হলেন বাংলা ছবি অন্যতম হিট জুটি প্রসেনজিৎ-ঋতুপর্ণা। আর তিনি হলেন, পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষ (Rituparno Ghosh)। আটবছর হল, ঋতুবিয়োগ হয়েছে। তবুও আজও বাংলা সিনেমার দর্শকদের মনের মণিকোঠায় রয়ে গিয়েছেন ঋতুপর্ণ ঘোষ। পরিচালকের প্রয়াণ দিবসে ঋতুপর্ণকে নিয়ে আবেগঘন বার্তা দিলেন টলিপাড়ার বুম্বা-ঋতু।

ঋতুপর্ণ ঘোষের প্রয়াণ দিবসে অভিনেতা প্রসেনজিৎ সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখলেন, ‘ ৮ বছর হয়ে গেছে তোর কোনও মেসেজ নেই, বকাঝকা নেই, সাক্ষাৎ হয় না, ঝগড়া হয় না, নতুন নতুন গল্প নিয়ে আলোচনা হয় না। কিন্তু. তুই আছিস – আমাদের মনে, আমাদের কথাবার্তায় তুই চির বর্তমান।এই সময়টায় তোর থাকা খুব দরকার ছিল রে। ভালো থাকিস ঋতু’। ১৯৯৪ সালে ‘উনিশে এপ্রিল’ ছবিতে ঋতুপর্ণের পরিচালনায় একেবারে অন্য ঘরানার ছবিতে অভিনয় করেন টলিপাড়ার ‘বুম্বা’। তারপর একের পর এক ‘উৎসব’, ‘চোখের বালি’, ‘দোসর’, ‘সব চরিত্র কাল্পনিক’-এর মতো সিনেমায় অভিনয় করে তাক লাগিয়েছেন প্রসেনজিৎ। তাঁর কেরিয়ারে মোড় ঘোরানোর নেপথ্যে ঋতুপর্ণ ঘোষের যে অবদান রয়েছে, সেকথা বহুবার নিজে মুখেই বলেছেন অভিনেতা।

Sourav Ganguly-কে কী প্রস্তাব দিয়েছিলন ঋতুপর্ণ ঘোষ!

প্রসেনজিতের মতোই টলি সম্রাজ্ঞী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের অন্য ধারার ছবিতে অভিনয়ে হাতেখড়ি হয়েছিল কার্যত ঋতুপর্ণের হাত ধরেই। ‘দহন’ সিনেমা ঋতুপর্ণার কেরিয়ারে একটা মাইলফলক। এই ছবির হাত ধরেই জাতীয় পুরস্কার জিতেছেন নায়িকা। এরপর ‘উৎসব’-এর মতো ছবিতেও অভিনয় করে নজর কেড়েছেন তিনি। ঋতুপর্ণ ঘোষের প্রয়াণ দিবসে ঋতুপর্ণা সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, ‘ কতদিন হয়ে গেল তোমার সাথে বসে গল্প করিনা, দেখাও হয়না …৮ বছর হয়ে গেল তুমি নেই… শুধু তোমার কাজ, তোমার শিক্ষা , তোমার ভালোবাসা ,তোমার বকা আর অনেক আশীর্বাদ আছে সঙ্গে! নতুন করে তোমায় মিস করিনা কারণ কোনোদিন ভুলতেই যে পারিনি তোমায় ! অনেক প্রণাম, ভালোবাসা আর তোমার প্রিয় ফুলের সুগন্ধ পাঠালাম। .. ভালো থেকো’। উল্লেখ্য, ‘চোখের বালি’ ও ‘দোসর’ ছবিতেও ঋতুপর্ণাই ছিল পরিচালকের প্রথম পছন্দ। কিন্তু, সেই সময় বাংলার হিট জুটির বিচ্ছেদপর্ব চলায় দুই ছবির প্রস্তাবই ফিরিয়ে দেন ঋতুপর্ণা। প্রসেনজিৎ-ঋতুপর্ণা ছাড়াও পরিচালকের প্রয়াণ দিবসে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন মিমি-সহ আরও অনেকে।






Source link