Prashant Kishor: করোনায় অনাথদের জন্য নমোর নীতি, তীব্র ‘কটাক্ষ’ পিকের! – prashant kishor attacks modi govt over modi announcement for children

Share Now





হাইলাইটস

  • মোদী সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণের সুর ক্রমশ চওড়া করছেন ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর (Prashant Kishor)
  • করোনা আবহে মোদী সরকারের ব্যর্থতা নিয়ে আগেই সোচ্চার হয়েছিলেন পিকে
  • অনাথ শিশুদের জন্য কেন্দ্রের নয়া ঘোষণা নিয়ে সরকারের সমালোচনায় মুখর হলেন তৃণমূলের ভোটকুশলী

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক:মোদী সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণের সুর ক্রমশ চওড়া করছেন ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর (Prashant Kishor)। করোনা আবহে মোদী সরকারের ব্যর্থতা নিয়ে আগেই সোচ্চার হয়েছিলেন পিকে। এবার অনাথ শিশুদের জন্য কেন্দ্রের নয়া ঘোষণা নিয়ে সরকারের সমালোচনায় মুখর হলেন তৃণমূলের ভোটকুশলী।

এই প্রসঙ্গে টুইটারে মোদী সরকারকে বিঁধে প্রশান্ত কিশোর লিখেছেন, ‘আরেকটা মোদী সরকারের নিজস্ব ধাঁচের মাস্টারস্ট্রোক। করোনায় বিধ্বস্ত শিশুরা প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি নিয়েই আপাতত বাঁচুক। এখন সাহায্য পাওযার বদলে ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত অপেক্ষা করুক তারা’।

অন্য একটি টুইটে প্রশান্ত আরও লিখেছেন, ‘পিএম কেয়ার্সের কাছে কৃতজ্ঞ হওয়া উচিত বিনামূল্যে শিক্ষার ব্যবস্থা করার জন্য। এই অধিকার সংবিধানেই দেওয়া আছে। আয়ুষ্মান ভারতে ওদের স্বাস্থ্যবিমা নিশ্চিত করা হয়েছে। যে আয়ুষ্মান ভারতের আওতায় ইতিমধ্যেই ৫০ কোটি দেশবাসী রয়েছেন। অথচ প্রয়োজনে হাসপাতালের বেড বা অক্সিজেন দিতে ব্যর্থ’। যে ভাষায় মোদী সরকারকে বিঁধলেন পিকে, তা উল্লেখযোগ্য বলে মনে করা হচ্ছে।

‘করোনার মধ্যেও মিথ্যাচার-আত্মপ্রচার’, কেন্দ্রকে তুলোধনা প্রশান্ত কিশোরের

উল্লেখ্য, শনিবার প্রধানমন্ত্রীর অফিসের তরফে জানানো হয়, করোনার ছোবলে অনাথ হওয়া শিশুদের সমস্ত দায়িত্ব নিচ্ছে মোদী সরকার। PM CARES তহবিল থেকে বিনামূল্যে তাদের শিক্ষার ব্যবস্থা করার সঙ্গে সঙ্গে ১৮ বছর পর্যন্ত ৫ লাখ টাকার স্বাস্থ্যবিমার সংস্থান করা হবে। ১৮ বছর তাদের জন্য ১০ লাখ টাকা স্টাইপেন্ডের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ২৩ বছর পর্যন্ত প্রতি বছর ১০ লাখ টাকা করে পাবেন এই কোভিডে অনাথ সন্তানেরা। শুধু তাই নয়, এই শিশুরা বড় হওয়ার পর তাদের উচ্চশিক্ষার জন্যেও বিনা সুদে শিক্ষা ঋণের ব্যবস্থা করবে কেন্দ্র। কোভিডে অনাথ শিশুদের সমস্ত খরচ করা হবে PM CARES তহবিল থেকে।






Source link