nude video of radhika apte: এই নগ্ন শরীর আমার ড্রাইভারও দেখেছে! বোমা ফাটালেন Radhika Apte – radhika apte talks about nude video leak

Share Now





এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: Radhika Apte। সাহসী নায়িকা হিসেবে তিনি বরাবরই পরিচিত। এহেন রাধিকা আপ্তে (Radhika Apte) করলেন এক বিস্ফোরক স্বীকারোক্তি। জানালেন তাঁর নগ্ন ভিডিয়ো দেখে তাঁর ড্রাইভার, বাড়ির ওয়াচম্যান থেকে শুরু করে তাঁর স্টাইলিস্টের ড্রাইভারও যখন তাঁকে চিনতে শুরু করেন তখন খুবই অস্বস্তিতে পড়েছিলেন নায়িকা। ঠিক কী হয়েছিল?

সম্প্রতি একটি ম্যাগাজিনকে দেওয়া সাক্ষাত্‍কারে Radhika Apte বলেন, Clean Shaven ছবির শ্যুটিং চলাকালীন তাঁর একটি নগ্ন দৃশ্যের ভিডিয়ো ইন্টারনেটে লিক হয়ে যায়। তার জন্যে ব্যাপকভাবে ট্রোলড হন তিনি। ‘সেই সময়ে আমি ভীষণ ডিসটার্বড হয়ে পড়েছিলাম। টানা চার দিন বাড়ির বাইরে বেরোতে পারিনি। মিডিয়া কি বলবে তা নিয়ে ভাবিনি। কিন্তু আমার ড্রাইভার, ওয়াচম্যান, আমার স্টাইলিস্টের ড্রাইভার সবাই ওই ক্লিপ দেখে আমাকে চিনতে পারছিল। ভীষণ অস্বস্তিতে ছিলাম ওই কটা দিন।’

একই সঙ্গে রাধিকা জানান, Leena Yadav পরিচালিত বিতর্কিত Parched ছবিতে যখন তাঁকে দৃশ্যের প্রয়োজনে নগ্ন হতে হয়, তখন তাঁর মধ্যে আর কোনও দ্বিধাই ছিল না। ‘আমার তো আর হারানোর কিছু ছিল না। তাই আর অস্বস্তিও হচ্ছিল না।’

আরও পড়ুন: ওয়েবের জন্য দর্শক বাড়ছে, মত রাধিকার

ঘুমের ঘোরে হাঁটার রোগ এবার পর্দায় আনছেন রাধিকা

বলিউডে রাধিকা আপ্তে (Radhika Apte) পা রাখেন Vaah! Life Ho Toh Aisi! ছবিতে একটি ছোট্ট ভূমিকায় অভিনয় করে।

শুধুমাত্র হিন্দি ছবি নয়, বাংলা, মরাঠি, ইংরেজি সব ধরনের ছবিতেই সমান সাবলীল। তাই তাঁর অন্তহীন যেমন মানুষের মন ছুঁয়ে যায়, তেমনই নজর কাড়েন Parched, Rakta Charitra-এর মতো ছবিতে কাজ করে।

যদিও শুরুতে রাধিকা বলেছিলেন, তিনি বিয়ের মতো সম্পর্কে বিশ্বাসী নন, তবু ২০১২ সালে গাঁটছড়া বাঁধেন ব্রিটিশ সংগীতশিল্পী Benedict Taylor-এর সঙ্গে। তবে জানেন কি বিয়ের দিনের পোশাক হিসেবে Radhika বেছে নিয়েছিলেন ঠাকুমার পুরনো শাড়ি। কেন এমন করেছিলেন? তাঁর নিজের জবানিতেই… ‘বিয়ে করব যখন ঠিক করলাম, তখনই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম ঠাকুমার পুরনো শাড়ি পরব। রেজিস্ট্রির দিন ওই শাড়িটি পরেছিলাম। গোটা শাড়িতে অজস্র ছিদ্র ছিল। তবুও সেই শাড়িটাই পরেছিলাম কারণ আমার ঠাকুমা এই দুনিয়ায় আমার সবচেয়ে প্রিয় মানুষ। আর সত্যি কথা বলতে কি বাহারি পোশাকের পিছনে অযথা খরচ করায় আমি একেবারেই বিশ্বাসী নই। হ্যাঁ, অন্য সব মেয়ের মতো আমিও চেয়েছিলাম বিয়েতে আমাকেও সুন্দর দেখতে লাগুক। রিসেপশন পার্টির জন্যে একটা ড্রেস কিনেছিলাম। কিন্তু বিশ্বাস করবেন কি না জানি না, তার দামও ১০ হাজারের বেশি ছিল না। আরও একটা মজার কথা বলি। ওই ড্রেসটাও একেবারে শেষ মুহূর্তে কিনেছিলাম, কারণ সময় থাকতে ড্রেস কেনার কথা মাথায় ছিল না। পোশাক নিয়ে বেশি ভাবনাচিন্তা করতে আমার একেবারেই ভালো লাগে না।’






Source link