Locket Chatterjee Was Defeated By Trinamool Congress Candidate – গাড়ি ভাঙচুরের সেই বুথে লকেটের প্রাপ্ত ভোট ৪ | Eisamay

Share Now





হাইলাইটস

  • এলাকার ৬৫ নম্বর বুথে BJP প্রার্থী লকেট চট্টোপাধ্যায় পরিদর্শন করতে গিয়ে ছাপ্পা ভোট হচ্ছে বলে অভিযোগ তোলেন।
  • সংখ্যালঘু অধ্যুষিত ওই এলাকার ৬৫ নম্বর বুথে BJP প্রার্থী লকেট চট্টোপাধ্যায় পরিদর্শন করতে গিয়ে ছাপ্পা ভোট হচ্ছে বলে অভিযোগ তোলেন।
  • আর BJP-র লকেট পেয়েছেন মাত্র ৪টি ভোট।

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: চুঁচুড়ায় প্রায় ১৮ হাজার ভোটে তৃণমূলের কাছে পরাজিত হয়েছেন BJP প্রার্থী লকেট চট্টোপাধ্যায়। জনতার এই রায় মাথা পেতে নিয়েছেন তিনি। তবে ‘লড়াই চলবে’ বলে দলীয় কর্মীদের বার্তা দেন তিনি।

চুঁচুড়া বিধানসভার ভোটের দিন সকালেই সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছিল ওই বিধানসভার অন্তর্গত ঈশ্বরবাহা এলাকা। সংখ্যালঘু অধ্যুষিত ওই এলাকার ৬৫ নম্বর বুথে BJP প্রার্থী লকেট চট্টোপাধ্যায় পরিদর্শন করতে গিয়ে ছাপ্পা ভোট হচ্ছে বলে অভিযোগ তোলেন। এর জন্য স্থানীয় তৃণমূল সমর্থকদের প্রবল বিক্ষোভের মুখেও পড়তে হয়েছিল তাঁকে। কোনোরকমে পুলিশের সাহায্যে বেরিয়ে আসেন লকেট। তবে তাঁর গাড়ির কাচ ভাঙে। তৃণমূলের দুষ্কৃতীরাই তাঁর গাড়িতে ইট মেরেছে বলে অভিযোগ তোলেন তিনি। যদিও লকেটের সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের পাল্টা দাবি, ভোট ঠিকঠাক চলছিল। লকেট এসে গণ্ডগোল বাঁধান। কারণ তিনি জানতেন, এখানে তিনি ভোট পাবেন না। গাড়ির কাঁচ নিজেই ভেঙে নাটক করেছিলেন তিনি।

মোদী-দিদির যুদ্ধ শেষেও জেলায় জেলায় লড়াই জারি, মৃত্যুও

চুঁচুড়ায় ‘হুগলি ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি’-তে চুঁচুড়া সহ চারটি বিধানসভার ভোট গণনা ছিল। চুঁচুড়া কেন্দ্রের গণনার সময় ৬ রাউন্ডে ১৪ নম্বর টেবিলে ওই ঈশ্বরবাহার ৬৫ নম্বর বুথটি উঠে আসে। দেখা যায়, ওই বুথে তৃণমূল পেয়েছে ৫৭২টি ভোট। আর BJP-র লকেট পেয়েছেন মাত্র ৪টি ভোট। চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত মজুমদার এই তথ্য উল্লেখ করে বলেন, ‘এদিনের গণনায় প্রমাণ হয়ে গেল ওই বুথে ভোট পাবেন না জেনে-বুঝেই লকেট ওখানে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে গিয়েছিলেন। আজ সেটা প্রমাণ হয়ে গেল।’

সোমবার এক ভিডিও বার্তায় দলের সমস্ত কার্যকর্তা সহ কর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়ে লকেট বলেন, ‘এই পরাজয় আমরা স্বীকার করে নিচ্ছি। মানুষের রায় আমরা মাথা পেতে নিচ্ছি। আমার লোকসভার সাতটি বিধানসভার পরাজয় আমি নিজে মাথা পেতে নিচ্ছি। দলের সমর্থকেরা প্রচুর পরিশ্রম করেছেন।’ একইসঙ্গে পরাজয়ের কারণ খুঁজতে মরিয়া লকেট। সেকথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের লড়াই চলবে। প্রতিটা বুথ ধরে ধরে কার্যকর্তাদের কাছে এই হারের বিশ্লেষণ চাওয়া হচ্ছে লিখিতভাবে। কেন এই পরাজয়? প্রত্যেকটি বুথের পদাধিকারীরা আমাকে হোয়াটসঅ্যাপে লিখে জানান।’






Source link