lockdown: ‘কয়েক সপ্তাহের জন্য ভারতে সম্পূর্ণ লকডাউন হোক’ – covid 19 update us top medical adviser suggest total lockdown in india

Share Now





হাইলাইটস

  • করোনা সুনামি রুখতে দেশের বিভিন্ন রাজ্য লকডাউনের পথে হাঁটলেও এখনও সে পথ বাছেনি মোদী সরকার
  • যে হারে দেশে সংক্রমণের ঢেউ উঠেছে, তাতে লকডাউন জারির পক্ষে সওয়াল করলেন আমেরিরকার শীর্ষ মহামারী বিশেষজ্ঞ অ্যান্টনি ফাওচি
  • করোনার দ্বিতীয় ঢেউ রুখতে অবিলম্বে ভারতে কয়েক সপ্তাহের জন্য লকডাউন জারির প্রস্তাব দিয়েছেন তিনি

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার ঝড়ে ভারতে হাহাকার পড়ে গিয়েছে। একদিকে রেকর্ড হারে বাড়ছে সংক্রমণ। অন্যদিকে, দেশে অক্সিজেনের অভাবে রোগী মৃত্যুর সংখ্যা উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। করোনা সুনামি রুখতে দেশের বিভিন্ন রাজ্য লকডাউনের পথে হাঁটলেও এখনও সে পথ বাছেনি মোদী সরকার। জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজেই জানিয়েছেন, যে কোনও উপায়ে লকডাউনকে এড়িয়ে চলতে হবে। কিন্তু, যে হারে দেশে সংক্রমণের ঢেউ উঠেছে, তাতে লকডাউন জারির পক্ষে সওয়াল করলেন আমেরিরকার শীর্ষ মহামারী বিশেষজ্ঞ অ্যান্টনি ফাওচি। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ রুখতে অবিলম্বে ভারতে কয়েক সপ্তাহের জন্য লকডাউন জারির প্রস্তাব দিয়েছেন তিনি।

একটি সর্বভারতীয় দৈনিকে অ্যান্টনি ফাওচি আরও বলেছেন, করোনা পরিস্থিতিতে ভাপতে অবিলম্বে অক্সিজেন, PPE, ওষুধ সরবরাহ করা হোক। একইসঙ্গে, দেশজুড়ে লকডাউন জারি করার কথা বলেছেন তিনি।

যদিও পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হলেও কেন্দ্র যে লকডাউন চায় না তা দ্বার্থ্যহীন ভাষায় স্পষ্ট করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কয়েকদিন আগে জাতির উদ্দেশে ভাষণে মোদী বলেছিলেন, ‘আপনারা সচেতন হলে, লকডাউনের কোনও প্রশ্নই নেই ।’ আরও একধাপ এগিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সংযোজন, ‘দেশকে লকডাউনের হাত থেকে রক্ষা করতে হবে।’ একইসঙ্গে রাজ্যগুলির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী পরামর্শ, ‘লকডাউন হোক সর্বশেষ বিকল্প। বরং মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোনের উপর জোর দেওয়া হোক।’

জুলাইয়ের আগে বেসরকারি হাসপাতালে ১৮ ঊর্ধ্বদের টিকা নয়, জানাল Serum

উল্লেখ্যে, দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশে যে হারে সংক্রমণ বাড়ছে, তাতে আবারও লকডাউন জারি করা হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এই আবহে লকডাউন নিয়ে যেভাবে আশ্বস্ত করলেন মোদী, তা উল্লেখযোগ্য বলে মনে করা হচ্ছে। অন্যদিকে, করোনা মোকাবিলায় দেশের একাধিক রাজ্যে লকডাউন জারি করা হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ।

গত বছর করোনার সংক্রমণ রুখতে চার দফায় মোট ৬৮ দিনের লকডাউন জারি করেছিল কেন্দ্র। তার জেরে দেশের অর্থনীতির কোমর কার্যত ভেঙে যায়। কর্মহীন হয়ে পড়েন সংগঠিত ও অসংগঠিত দুই ক্ষেত্রের বহু মানুষ। স্টেশনে স্টেশনে পরিযায়ী শ্রমিকদের ঢল নামে। পায়ে হেঁটে, সাইকেল চালিয়ে হাজার হাজার কিমি পথ অতিক্রম করে পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরার ছবি মোদী সরকারের কাছে বড়সড় অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

টাটকা ভিডিয়ো খবর পেতে সাবস্ক্রাইব করুন এই সময় ডিজিটালের YouTube পেজে। সাবস্ক্রাইব করতে এখানে ক্লিক করুন।






Source link