Indian Railways update: ট্রেন চালু নিয়ে উদ্বেগ, রোজ Covid-এ আক্রান্ত ১০০০ রেল কর্মী – Indian Railways Say They Lost 1952 Employees Due To Covid 19 And Reporting 1000 New Cases Daily | Eisamay

Share Now





হাইলাইটস

  • ভারতীয় রেলের পক্ষ থেকে জানানো হল, এখনও পর্যন্ত করোনায় ১৯৫২ জন কর্মীর মৃত্যু হয়েছে
  • রোজ প্রায় হাজার জন করে রেল কর্মী আক্রান্ত হচ্ছেন
  • এমন পরিসংখ্যান তুলে ধরেছেন রেলওয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যান সুনীত শর্মা

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার (Covid 19) ছোবলে গতবছর থমকে গিয়েছিল রেলের চাকা। বছর ঘুরতেই থাবা বসিয়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। লাগামহীন সংক্রমণের ধাক্কায় ফের বিঘ্নিত হচ্ছে রেল পরিষেবা (Indian Railway)। রোজই ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন রেলকর্মীরা। এমন আবহে ভারতীয় রেলের পক্ষ থেকে জানানো হল, এখনও পর্যন্ত করোনায় ১৯৫২ জন কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। রোজ প্রায় হাজার জন করে রেল কর্মী আক্রান্ত হচ্ছেন। এমন পরিসংখ্যান তুলে ধরেছেন রেলওয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যান সুনীত শর্মা। এই পরিস্থিতিতে আগামী দিনে করোনা আবহে রেল পরিষেবা কীভাবে সচল রাখা যাবে, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে বিভিন্ন মহলে।

এই প্রসঙ্গে রেলওয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যান আরও বলেছেন, ‘আমাদের হাসপাতাল রয়েছে। বেডের সংখ্যা বাড়িয়েছি। রেল হাসপাতালে অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরি করেছি। কর্মীদের যত্ন নেওয়া হচ্ছে। যাতে কর্মীরা দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠতে পারেন, সে জন্য সবরকম চেষ্টা চালানো হচ্ছে।’

এদিকে, যে হারে করোনা সংক্রমণ ছড়াচ্ছে, তাতে পশ্চিমবঙ্গে লোকাল ট্রেন পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। দিল্লি মেট্রো বন্ধ করা হয়েছে। দূরপাল্লার কিছু ট্রেনও বাতিল করা হয়েছে। অন্যদিকে, করোনা পরিস্থিতিতে সকলকে মাস্ক পরা বা দুরত্ববিধি মেনে চলার মতো কোভিড (Covid 19) সুরক্ষাবিধি মেনে চলার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু, দেশবাসীর একটা বড় অংশেরই করোনায় সুরক্ষাবিধি না মেনে চলার ছবি সামনে এসেছে। এই পরিস্থিতিতে নয়া নির্দেশিকা জারি করেছে ভারতীয় রেল। রেল চত্বরে মাস্ক না পরলে এবার গুনতে হবে ৫০০ টাকা জরিমানা। ট্রেন ও রেল স্টেশনে কোনও যাত্রী যদি মাস্ক না পরেন, তাহলে তাঁকে জরিমানা দিতে হবে বলে শনিবার নির্দেশিকা জারি করেছে ভারতীয় রেল। ফেস মাস্ক নিয়ে এই নির্দেশিকা আগামী ছয় মাস কার্যকর থাকবে বলে জানানো হয়েছে

Covid রুখতে ডাবল মাস্ক কীভাবে পরবেন? নয়া নির্দেশিকা কেন্দ্রের

উল্লেখ্য, গতবছর করোনা সংক্রমণের জেরে লকডাউন জারি করা হয় দেশে। এর ফলে গত বছরের ২৩ মার্চ থেকে দীর্ঘ প্রায় নয় মাস ধরে বন্ধ ছিল ট্রেন পরিষেবা। তবে কিছু স্পেশাল ট্রেন চালানো হয়েছিল।






Source link