Hindi, English ছাড়া বলা যাবে না অন্য ভাষা! নার্সদের কড়া নির্দেশ হাসপাতালের

Share Now





নিজস্ব প্রতিবেদন: কথা বলতে হবে কেবল হিন্দি ও ইংরেজিতেই (Hindi and English)। নার্সদের (Nurses) উপর কড়া নির্দেশ চাপাল দিল্লির হাসপাতাল (Delhi Hospital)। এমনকী নির্দেশ না মানলে তাঁদের বিরুদ্ধে ‘কঠোর ব্যবস্থা’ নেওয়া হবে বলেও জানান হল হাসপাতালের তরফে। আর এই খবর শিরোনামে আসতেই সমালোচনা ঝড় উঠেছে। কেন এমন নির্দেশ দেওয়া হল হাসপাতালের তরফে?

সূত্রের খবর, দিল্লির গোবিন্দ বল্লভ পন্ত ইনস্টিটিউট হাসপাতালে আসা রোগী বা তাঁর পরিবারের সঙ্গে মালয়ালম ভাষায় যোগাযোগ করছিলেন এক নার্স। কর্মক্ষেত্রে আঞ্চলিক ভাষার ব্যবহারকে অপরাধ হিসেবে গণ্য করে ঐ হাসপাতাল। এরপরই নির্দেশিকা জারি করে বলা হয়,’রোগী বা তাঁদের পরিবারের অধিকাংশ লোকই স্থানীয় ভাষা বোঝেন না। অসহায় বোধ করেন। তাই সকল নার্সদের শুধু হিন্দি বা ইংরেজি ব্যবহারের নির্দেশিকা দেওয়া হচ্ছে। অন্যথায় কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’  

একজন নার্স বলেন, ‘হাসপাতালটিতে প্রায় ৩০০ থেকে ৩৫০ জনের মতো নার্স রয়েছেন। আমরা সবসময় রোগীর সঙ্গে হিন্দিতে কথা বলি। তাদের সঙ্গে মালায়ালাম ভাষায় কথা বললে কিছু বুঝতে পারবে না। এখন কর্তৃপক্ষ বলছে, আমরা নিজেদের মধ্যেও মালায়ালাম ভাষায় কথা বলতে পারবো না।’

আরও পড়ুন: Corona Update: ২ মাসে সর্বনিম্ন দৈনিক আক্রান্ত, কমল মৃত্যুও, নিম্নমুখী গ্রাফ
আরও পড়ুন: যোগী আদিত্যনাথকে কেন টুইটে Birthday Wish করলেন না মোদী?

যদিও এই নির্দেশ নিয়ে আপত্তি রয়েছে হাসপাতালের নার্স সংগঠনের। তাঁরা জানান, এক রোগী হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে এক নার্সের বিরুদ্ধে মালয়ালম ভাষা ব্যবহারের অভিযোগ করেছেন। তার জেরেই এই নির্দেশিকা চাপানো হয়েছে। কিন্তু ঐ নির্দেশিকা আঞ্চলিক ভাষাগুলির প্রতি ‘অবমাননাকর’ বলে মনে করছে সংগঠন। দিল্লির নার্স ফেডারেশনও ঐ নির্দেশিকায় ব্যবহৃত শব্দগুলির সঙ্গে সহমত নয়।

গোটা ঘটনায় মানবধিকার লঙ্ঘনের (Human Rights Violation) বিষয় নিয়ে সরব হয়েছে কংগ্রেস (Congress)। রাহুল গান্ধী, শশী তারুর থেকে কে সি বেণুগোপালও ভাষা বৈষম্যের কথা নিয়ে সরব হয়েছেন। তবে ইতিমধ্যেই হাসপাতালকে কারণ দর্শানোর নোটিস দেওয়া হয়েছে। কেন এমন কড়া বিজ্ঞপ্তি তা জানতে চাওয়া হয়েছে হাসপাতালর কাছে।  

 







Source link