Dilip Ghosh Reacts Over Campaign Ban Of Mamata Banerjee By Election Commission – নিষিদ্ধ মমতার প্রচার, যা বললেন দিলীপ | Eisamay

Share Now





হাইলাইটস

  • মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারে নির্বাচন কমিশনের নিষেধাজ্ঞা জারি করা নিয়ে এবার মুখ খুললেন রাজ্য BJP সভাপতি দিলীপ ঘোষ।
  • মঙ্গলবার সকালে বহরমপুরে স্কোয়ার ফ্লিন্ডে প্রাতঃভ্রমণের পর তিনি বলেন, ‘আগেই চেয়েছিলাম ওনাতে প্রচার থেকে সরানো হোক।’
  • ‘আমি তো বলছি পুরো নির্বাচনটাই ওনাকে ব্যান করা হোক। ‘

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারে নির্বাচন কমিশনের নিষেধাজ্ঞা জারি করা নিয়ে এবার মুখ খুললেন রাজ্য BJP সভাপতি দিলীপ ঘোষ। মঙ্গলবার সকালে বহরমপুরে স্কোয়ার ফ্লিন্ডে প্রাতঃভ্রমণের পর তিনি বলেন, ‘আগেই চেয়েছিলাম ওনাতে প্রচার থেকে সরানো হোক। আমি তো বলছি পুরো নির্বাচনটাই ওনাকে ব্যান করা হোক। ‘

এখানেই শেষ নয়, এদিন দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘উনি সাম্প্রদায়িক কথা বলেছেন। আমরা নির্বাচন কমিশনের কাছে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছিলাম। তা দেখেই নির্বাচন কমিশন ওনার প্রচার ২৪ ঘণ্টা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

প্রসঙ্গত, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) আগামী ২৪ ঘণ্টা প্রচার করতে পারবেন না। এমন নিষেধাজ্ঞাই জারি করেছে নির্বাচন কমিশন। এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মঙ্গলবার বেলা ১২ থেকে ধরনায় বসতে চলেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। অগণতান্ত্রিক ও অসাংবিধানিক- কমিশনের নিষেধাজ্ঞাকে এভাবেই সম্বোধন করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টুইটে নেত্রী লিখেছেন, ‘নির্বাচন কমিশনের অগণতান্ত্রিক এবং অসাংবিধানিক সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বেলা ১২ থেকে গান্ধীমূর্তির পাদদেশে ধরনায় বসব।’

২৪ ঘণ্টার ব্যান! কমিশনের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ধরনায় বসছেন মমতা
এদিকে, এই প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছেন বিরোধীরা। দিলীপ ঘোষ এদিন আরও বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে চূড়ান্ত দায়িত্বজ্ঞানহীনতার পরিচয় দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই ধরনের দায়িত্বজ্ঞানহীন মুখ্যমন্ত্রীর অবিলম্বে পদত্যাগ করা উচিত।’

উল্লেখ্য, সংখ্যালঘু ভোট ভাগ নিয়ে মন্তব্য করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই মন্তব্যের জেরে কমিশনে অভিযোগ জানানো হয়েছিল। তার জেরে তৃণমূল সুপ্রিমোকে নোটিশ পাঠায় কমিশন। এই প্রেক্ষিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জবাব সন্তোষজনক নয় বলে জানাল কমিশন। নির্বাচনী বিধি ভঙ্গের অভিযোগে গত শুক্রবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে দ্বিতীয়বার নোটিশ পাঠায় কমিশন। কেন গত ২৮ মার্চ এবং ৭ এপ্রিল কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে অপ্রীতিকর মন্তব্য করেছিলেন তিনি তা জানতে চাওয়া হয় ওই নোটিশে। এই প্রসঙ্গে মমতা বলেছিলেন, ‘একটা কেন ১০টা নোটিশ পাঠাতে পারেন আমাকে।’

মুখ্যমন্ত্রীর ধর্নায় বসার সিদ্ধান্তকেও তীব্র কটাক্ষ করেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘ওনি কথায় কথায় রাস্তায় বসে পড়েন। দুঃখের বিষয় উনি নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধেও রাস্তায় বসে পড়ছেন। এভাবে একজন মুখ্যমন্ত্রী কমিশনের অবমাননা করছেন, এটা মানা যায় না।’

টাটকা ভিডিয়ো খবর পেতে সাবস্ক্রাইব করুন এই সময় ডিজিটালের YouTube পেজে। সাবস্ক্রাইব করতে এখানে ক্লিক করুন।






Source link