Covid death: অমানবিক! প্রায় ২৪ ঘণ্টা বাড়িতেই পড়ে রইল অশীতিপর বৃদ্ধার মৃতদেহ – old women dead body lying in house for more than 24 hours in bhatpara west bengal

Share Now





হাইলাইটস

  • জানা গিয়েছে, মৃত ওই বৃদ্ধার নাম মনোরমা বড়ুয়া।
  • ফলে আশির্ধ্বো মনোরমা বড়ুয়া একাকী-ই ঘরের মধ্যে পড়ে ছিলেন।
  • ভাটপাড়া পুরসভার তরফে অবশ্য এলাকা স্যানিটাইজ করার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক : ফের অমানবিক ঘটনার সাক্ষী থাকল রাজ্য! এবার ঘটনাস্থল উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়া। প্রায় ২৪ ঘণ্টা বাড়িতেই পড়ে রইল অশীতিপর বৃদ্ধার নিথর দেহ। যদিও করোনায় তাঁর মৃত্যু হয়েছে কিনা তা স্পষ্ট নয়। কেবল সন্দেহ বশতই বৃদ্ধার দেহের সৎকার দূরস্ত, আশপাশে গেলেন কেউ।

জানা গিয়েছে, মৃত ওই বৃদ্ধার নাম মনোরমা বড়ুয়া। ভাটপাড়া পুরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাঁকিনাড়া- রথতলা এলাকার বাসিন্দা ছিলেন তিনি। তাঁর দুই ছেলে। কিন্তু বর্তমানে দুজনেই অসুস্থ। ফলে আশির্ধ্বো মনোরমা বড়ুয়া একাকী-ই ঘরের মধ্যে পড়ে ছিলেন। অসুস্থ হয়ে পড়লেও তাঁর মুখে জল দেওয়ার কেউ ছিল না। তারপর শুক্রবার গভীর রাতে নিজের ঘরেই মৃত্যু হয় মনোরমাদেবীর। খবরটি প্রতিবেশীরা জানতে পারলেও মনোরমাদেবীর সৎকার করতে কেউ এগিয়ে আসেননি।

বন্ধ হলের অন্ধকারে তলিয়ে যাচ্ছে মালিক-কর্মীদের ভবিষ্যৎ
সকলেরই ধারণা, করোনা আক্রান্ত হয়েই মৃত্যু হয়েছে মনোরমা বড়ুয়ার। যদিও তাঁর করোনা আক্রান্ত হওয়ার নির্দিষ্ট কোনো প্রমাণ মেলেনি। তবু সন্দেহবশত সকলেই দূরে সরে দাঁড়ান। ফলে শুক্রবার গভীর রাত থেকে শনিবার রাত ৯টা পর্যন্ত প্রায় ২৪ ঘন্টা বাড়ির মধ্যেই পড়ে রইল বৃদ্ধার মৃতদেহ।এদিকে, করোনা আক্রান্তের দেহ দীর্ঘক্ষণ বাড়ির মধ্যে পড়ে রয়েছে, সংক্রমণ ছড়াতে পারে বলে আশঙ্কা ছড়ায় কাঁকিনাড়া- রথতলা এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে। তারপর এলাকারই কয়েকজন স্থানীয় তৃণমূল নেতা অশোক দত্তকে খবর দেন। খবর পাওয়া মাত্রই অশোকবাবু নিজে মনোরমাদেবীর দেহ সৎকারের উদ্যোগ নেন। তিনিই ভাটপাড়া পুরসভায় খবর দেন। তারপর ভাটপাড়া পুরসভার সঙ্গে যোগাযোগ করে মৃতদেহটি সৎকারের ব্যবস্থা করেন।

কেবল একটি শর্তে বিনামূল্যে চিকিৎসা পাচ্ছেন করোনা রোগীরা
শুধু তাই নয়, ভাটপাড়া পুরসভার কর্মীরা এলাকায় এলে পাড়ার সকলে যখন সংক্রমণের আশঙ্কায় ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করেন, তখন অশোকবাবু নিজে দাঁড়িয়ে থেকে মনোরমা বড়ুয়ার দেহটি সৎকারের জন্য পাঠান। যদিও দেহ নিয়ে যাওয়ার পরেও এলাকাবাসীর আতঙ্ক কাটেনি। মনোরমাদেবীর করোনা-ই হয়েছিল ধরে নিয়ে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কায় আতঙ্কিত তাঁরা। পাড়া স্যানিটাইজ করারও দাবি তুলেছেন অনেকে। ভাটপাড়া পুরসভার তরফে অবশ্য এলাকা স্যানিটাইজ করার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

উত্তর ২৪ পরগনা জেলার আরও খবরের জন্য ক্লিক করুন।প্রতি মুহূর্তে খবরের আপডেটের জন্য চোখ রাখুন এই সময় ডিজিটালে।






Source link