covid 19 precautions: ঘুমেই সারবে করোনা! যা জানাল ভারত সরকার… – proning will help covid 19 patients to breathe, says ministry of health and family welfare

Share Now





হাইলাইটস

  • ঘুমেই মিলবে স্বস্তি।
  • করোনা আক্রান্তদের শ্বাসকষ্টের প্রবণতাও কমাতে পারে ঘুমই।
  • দেশে আছড়ে পড়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ।

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: ঘুমেই মিলবে স্বস্তি। করোনা আক্রান্তদের শ্বাসকষ্টের প্রবণতাও কমাতে পারে ঘুমই। দেশে আছড়ে পড়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। হাসপাতালের শয্যা সংখ্যাও কমছে প্রতিনিয়ত। অক্সিজেনের সংকট দেখা দিয়েছে ইতিমধ্যেই। এই অবস্থায় হোম আইসোলেশনে থেকেই চিকিৎসা চালানোর পরামর্শ দিচ্ছে ভারত সরকার। শ্বাসকষ্ট কমানোর জন্য ‘প্রোনিং’ পদ্ধতি অবলম্বন করার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফ থেকে।

এবার প্রশ্ন, কী এই ‘প্রোনিং’ ? এটি আসলে ঘুমানোর একটি বিশেষ পদ্ধতি। যা শ্বাসযন্ত্রের কর্মক্ষমতা অনেকটাই বাড়িয়ে দেয়। আরও সহজ ভাষায় বলতে গেলে, উপুড় হয়ে শোয়ার ধরনকে চিকিৎসার পরিভাষায় ‘প্রোনিং’ বলা হয়ে থাকে। সাধারণত বিশেষজ্ঞরা রোগীকে ওই বিশেষ কায়দায় শুইয়ে দেন, যাতে অ্যালভিওলার ইউনিট উন্মোচিত হয়। এতে শরীরে অক্সিজেন চলাচল সঠিকভাবে হয়। ভেন্টিলেশন দ্রুত হয়। ফলত শ্বাসকষ্টের সমস্যা কমে। তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে অনেকেই হোম আইসোলেশনে রয়েছেন। পরিবারের কাছাকাছিও তাঁরা যেতে পারছেন না। এই সময়টায় নিজের যত্ন নিতে হবে নিজেকেই।

কিন্তু কীভাবে?

আসলে বিষয়টি খুবই সহজ। এর জন্য শুধুমাত্র ৪-৫টি বালিশ কাছে থাকা জরুরি। প্রথমে ৩০ মিনিট উপুড় হয়ে শুয়ে থাকুন। এরপর আরও ৩০ মিনিট ডান দিকে ঘুরে শুতে হবে। সময় হয়ে গেলে পরবর্তী ৩০ মিনিট পিঠের উপর ভর দিয়ে আধশোয়া পজিশনে থাকতে হবে। এবারে বাঁদিক ঘুরে শুতে হবে মিনিট তিরিশেক। হয়ে গেলে ফের প্রথম পজিশনে ফিরে যেতে হবে। অর্থাৎ পেটের উপর ভর দিয়ে উপুড় হয়ে শুয়ে থাকতে হবে আরও ৩০ মিনিট।

How to do Proning

ছবি সৌজন্য- @MoHFW_INDIA

কেন্দ্র জানিয়েছে, একটি পজিশনে ৩০ মিনিটের বেশি না থাকাই শ্রেয়। জোর করে এই প্রক্রিয়া অবলম্বন না করাই ভালো। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন। বালিশগুলিকে নিজের সুবিধা মতো ব্যবহার করতে হবে। এই ক্ষেত্রে নিজের আরামের দিকে সর্বাগ্রে নজর দিন। তবে খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ওই প্রক্রিয়া অবলম্বন করবেন না। একজন চাইলে দিনে ১৬ ঘণ্টা ঘুরিয়ে ফিরিয়ে প্রোনিং পদ্ধতি মানতে পারেন। তবে যে মুহূর্তে শারীরিক সমস্যা হবে, তখনই তা বন্ধ করে দিতে হবে।


কারা ওই পদ্ধতি অবলম্বন করবেন না?

  • প্রথমত গর্ভাবস্থায় থাকাকালীন উপুড় হয়ে শোবেন না।
  • যাঁদের ডিপ ভেনাস থ্রমবসিসের মতো রোগ আছে, তাঁদের জন্য ওই পদ্ধতি নয়।
  • হৃদরোগীরা এই পদ্ধতি অবলম্বন করবেন না।
  • হাড়ের সমস্যা থাকলে প্রণিং এড়িয়ে যাওয়াই ভালো।
GOI suggest Proning for Covid Patients

ছবি সৌজন্য- @MoHFW_INDIA

প্রসঙ্গত, কোভিড় রোগীদের সঠিক পরিমাণ ঘুম অত্যন্ত জরুরি, এ কথা আগেই জানিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। আসলে ঘুমই অনাক্রম্যতাতন্ত্রকে মজবুত করে তোলে। সেই কারণেই চিন্তামুক্ত হয়ে ঘুমানো খুবই জরুরি।

এছাড়াও টিকাকরণের পরও সুস্থ থাকার জন্য প্রত্যেকের মাস্ক পরা জরুরি, এদিন আবারও সে কথা মনে করিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র।

টাটকা ভিডিয়ো খবর পেতে সাবস্ক্রাইব করুন এই সময় ডিজিটালের YouTube পেজে। সাবস্ক্রাইব করতে এখানে ক্লিক করুন।






Source link