anirban bhattacharya: Bollywood কলিং! নতুন যাত্রা শুরু Anirban Bhattacharya-র – will actor anirban bhattacharya act in bollywood opposite rani mukerji in her next mrs chatterjee vs norway

Share Now





এ বার কি হিন্দি ছবিতে দেখা যাবে অভিনেতা অনির্বাণ ভট্টাচার্যকে? বলিউডের বাতাসে তেমন খবর ভাসছে। ‘মিসেস চ্যাটার্জি ভার্সেস নরওয়ে’ ছবিতে অভিনয় করবেন নায়িকা রানি মুখোপাধ্যায়, সে ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। একজন মায়ের সমগ্র দেশের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের গল্প এটি। রানি মুখোপাধ্যায়ের মতে, এটি তাঁর জীবনের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ছবি হতে চলেছে। খবর হল, সেই ছবির একটি চরিত্রের জন্য নাকি অনির্বাণ ভট্টাচার্যকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। অতিমারী পরিস্থিতিতে কোন ছবির শুটিং কবে হবে, তা নির্ধারণ করা মুশকিল। তার উপর এই ছবির শুটিং হবে দেশের বাইরে। তাই শেষ পর্যন্ত রানি মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে অনির্বাণকে দেখা যাবে কি না, তা সময় বলবে। কী বলছেন অনির্বাণ? তাঁর বক্তব্য, ‘এখনই এ প্রসঙ্গে কিছু বলতে পারবো না’। প্রযোজনা সংস্থার তরফেও রানি মুখোপাধ্যায় ছাড়া ছবিতে আর কাকে দেখা যাবে, সে বিষয়ে কিছু ঘোষণা করা হয়নি।

তবে সব কিছু ঠিকভাবে এগোলে, এটা যে অনির্বাণের কেরিয়ারের একটি মোড় ঘোরানো ছবি হবে, সংশয় নেই। ২০১৬ সালে ‘ঈগলের চোখ’ ছবিতে অভিনয় করার পর তাঁকে নিয়ে চর্চা শুরু হয় টলিউডে। ‘উমা’, ‘শাহজাহান রিজেন্সি’, ‘গুমনামী’, ‘ভিঞ্চি দা’, ‘দ্বিতীয় পুরুষ’, ‘ড্রাকুলা স্যার’-এর মতো বিভিন্ন ছবিতে তাঁর অভিনয় প্রশংসিত হয়েছে। সে কারণেই টলিউডের ‘ভালো অভিনেতা’ কবে বলিউডে কাজ করবেন, সে প্রশ্ন ছিল। আসা করা যায়, উত্তর রয়েছে, নাগালের মধ্যে। প্রসঙ্গত এর আগে রানি মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে ‘মরদানি’ ছবিতে কাজ করেছিলেন আর এক নায়ক যিশু সেনগুপ্ত।

আরও পড়ুন: বাংলার মোস্ট এলিজেবল ব্যাচেলর অনির্বাণের এই খবরে আপনি চমকাবেন!
হালকা শীতের আমেজ মাখা শহরে বাঁধা পড়লেন অনির্বাণ-মধুরিমা

বিবাহিত হলে কিংবা মা হয়ে পড়লেই বলিউডে অভিনেত্রীদের ছকে ফেলে দেওয়া হয়। এমনটাই মনে করেন অভিনেত্রী রানি মুখোপাধ্যায়। তাঁর মতে এটা অত্যন্ত রিগ্রেসিভ বা সেকেলে ভাবনা। বেশ কিছুদিন আগে একটি সাক্ষাত্‍‌কারে তিনি বলেছিলেন, ‘ইন্ডাস্ট্রিতে বেশ কিছু দিন থাকার ফলে কারও বিয়ে হয়ে গেলেই আমার জানা আছে অনেকেই ফিসফিস করেন যে এবার নিশ্চিত এই মেয়ের নায়িকা হওয়া বন্ধ হল। কেরিয়ারকে বাই-বাই করে ঘর সংসার নিয়ে এ বার থাকলেই হয়। এই ভাবনা কখনওই আমাদের এগিয়ে দেয় না, বরং পিছনে টেনে রাখে।’






Source link