888 trees to be axed: ঘোর বিপদ! প্রায় হাজার খানেক গাছ কেটে ফেলা হচ্ছে – 888 trees to be axed for bengaluru-chennai expressway

Share Now





হাইলাইটস

  • একসঙ্গে প্রায় হাজার খানেক গাছ কেটে ফেলার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে
  • চার লেনের বেঙ্গালুরু-চেন্নাই এক্সপ্রেসওয়ের জন্য এই সিদ্ধান্ত
  • কাটা হতে পারে ৮৮৮টি গাছ

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: একটি গাছ, একটি প্রাণ! করোনা আবহে যখন অক্সিজেনের অভাবে দেশে রোগী মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে, চারদিকে যখন একটু অক্সিজেনের জন্য হাহাকার পড়ে গিয়েছে, সেই আবহে এ যেন অশনি সংকেত! একসঙ্গে প্রায় হাজার খানেক গাছ কেটে ফেলার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। যে খবর শুনে শিউরে উঠেছেন পরিবেশপ্রেমীরা। জানা যাচ্ছে, চার লেনের বেঙ্গালুরু-চেন্নাই এক্সপ্রেসওয়ে ভেলোরে মাগিমন্ডলম বনভূমির উপর দিয়ে যাবে। এজন্যই কাটা হতে পারে ৮৮৮টি গাছ। যার মধ্যে রয়েছে ১১০টি লাল চন্দন গাছ।

রিজিওনাল এমপাওয়ার্ড কমিটির (REC) কাছে ইতিমধ্যেই আবেদনপত্র পেশ করেছে জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ (NHAI)। যে ৮৮৮টি গাছ কাটা হতে পারে, তার মধ্যে ৭৭৮টি বিভিন্ন ধরনের গাছ রয়েছে। ১১০টি লাল চন্দন গাছ প্রায় ৪০ বছরের পুরনো। বনবিভাগ জানিয়েছে, যদিও বনভূমিটির মধ্যে কোনও অভয়ারণ্য, জাতীয় উদ্য়ান, বাঘ সংরক্ষণ কেন্দ্র অথবা হাতির করিডর নেই, তবে, সেখানে বিভিন্ন জন্তু রয়েছে। ভেলোরের বন বিভাগ শর্তসাপেক্ষে প্রস্তাবটি সুপারিশ করে। যেখানে বলা হয়, রাস্তার কাজ সম্প্রসারণের সময় জন্তুদের জন্য প্যাসেজের ব্যবস্থা করতে হবে, যাতে জন্তুরা কোনও বাধা ছাড়াই রাস্তার এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে যেতে পারে।

সর্বশক্তি দিয়ে করোনার বিরুদ্ধে লড়ছে দেশ, আমরা জিতবই: মোদী

NHAI আধিকারিকরা জানিয়েছেন, গাছ কাটার আর্জি সুপ্রিম কোর্টের সেন্ট্রাল এমপাওয়ার্ড কমিটি অনুমোদন করেছে। অন্যদিকে, সে রাজ্যের বন দফতর চাইলে গাছ কাটার বদলে অন্যত্র স্থানান্তর করতে পারে বলে প্রস্তাব দিয়েছে কমিটি। সেই সঙ্গে আরও বলা হয়, কাছাকাছি কোনও বনে জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের খরচে সমান সংখ্যক লাল চন্দন গাছ লাগানো হোক।






Source link