হেভিওয়েটদের যোগদানে বিজেপির আদর্শের পরিবর্তন হয়নি, বললেন শাহ, Heavyweights like Suvendu Adhikari joins BJP, but ideology has not changed, says Amit Shah

Share Now





 ২০১৯-এ অনেক সন্দেহ দূর হয়েছে

২০১৯-এ অনেক সন্দেহ দূর হয়েছে

বিজেপির প্রাক্তন সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ জোর দিয়েছেন ২০১৯-এ জাতীয় নির্বাচনে বিজেপির জয়ের প্রসঙ্গে। ওই নির্বাচনে বিজেপি ৪২ টি আসনের মধ্যে ১৮ টি আসনে জয়ী হয়েছিল। অমিত শাহ বলেছেন, এই নির্বাচনে বিজেপি অনেক সন্দেহ দূর করে দিতে পেরেছে। পাশাপাশি তিনি এবারের নির্বাচনেও বেশি সংখ্যায় আসন জিততে আত্মবিশ্বাসী বলেও জানিয়েছেন।

দলের সভাপতি হিসেবে কাজের কথা স্মরণ

দলের সভাপতি হিসেবে কাজের কথা স্মরণ

২০১৭-২০২১ সাল, রাজ্যে বিজেপির সফরের কথা স্মরণ করেছেন অমিত শাহ। তিনি বলেছেন, সেই সময় দলের সভাপতি হিসেবে নকশালবাড়িতে বিজেপির সদস্য সংগ্রহ অভিযান শুরু করেছিলেন। যা দলকে শক্তিশালী করতেই নেওয়া হয়েছিল। আর বর্তমানে দল রাজ্যে শক্তিশালী বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। দলের কর্মীদের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলেই তা সম্ভব হয়েছে। এছাড়াও রাজ্যে প্রধানমন্ত্রী মোদীর জনপ্রিয়তা রয়েছে বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

দলের আদর্শের বিস্তার করতে পেরেছে বিজেপি

দলের আদর্শের বিস্তার করতে পেরেছে বিজেপি

২০১১ সালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যে ৩৪ বছরের বাম শাসনের অবসান করেছিলেন। কিন্তু রাজ্যে পরিবর্তন সাধিত হয়নি। কেননা সাধারণ মানুষ ২০১৬-তে তৃণমূল সরকারের ওপরে অসন্তুষ্ট ছিলেন। সেই সময় বিজেপি সাংগঠনিক কারণেই এগোতে পারেনি। কিন্তু পরবর্তী সময়ে বিজেপি তাদের আদর্শ সাধারণ মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে পেরেছে। মন্তব্য করেছেন অমিত শাহ।

 বিজেপির আদর্শের পরিবর্তন হয়নি

বিজেপির আদর্শের পরিবর্তন হয়নি

আগে দুএকজন করে হলেও গত ডিসেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহে শুভেন্দু অধিকারীর মতো হেভিওয়েট নেতা বিজেপিতে যোগ দেন। পরবর্তী সময়ে যোগ দিয়েছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। এব্যাপারে অমিত শাহ বলেছেন, সারা দেশেই বিভিন্ন দল থেকে নেতানেত্রীরা বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। তাতে বিজেপির আদর্শ, সংস্কৃতি কিংবা কাজের ধারার কোনও পরিবর্তন হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

রাজনৈতিক সংঘর্ষ নিয়ে মমতা নিশানা

রাজনৈতিক সংঘর্ষ নিয়ে মমতা নিশানা

রাজ্যে রাজনৈতিক সংঘর্ষ নিয়ে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করেছেন। তিনি বলেছেন, এব্যাপারে মমতা দিদি, কংগ্রেস এবং কমিউনিস্টদের জিজ্ঞাসা করা যেতে পারে। কেননা বিগত বছরগুলিতে রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় ছিল না। রাজ্যে কেন এই রাজনৈতিক হিংসা, এরাই উত্তর দিতে পারবে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশে শীতলকুচিতে গুলি, অভিযোগের জবাব

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশে শীতলকুচিতে গুলি, অভিযোগের জবাব

১০ এপ্রিল কোচবিহারের শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিকাণ্ডের পরে তৃণমূলের তরফে অভিযোগ করা হয়েছিল, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশে গুলি চলেছে। এর জবাব দিতে গিয়ে অমিত শাহ বলেছেন, নির্বাচনের সময় কেন্দ্রীয় বাহিনী নির্বাচন কমিশনের অধীনে কাজ করে। সেখানে কেন্দ্রীয় সরকারের হস্তক্ষেপের কোনও পর্যায়ই থাকে না।






Source link