‘শর্ত’ দিয়ে ইস্তফা নিয়ে মমতার দাবিতে সাড়া অমিত শাহের, Amit Shah responds to the claims of Mamata Banerjee on resignation

Share Now





মমতা বড় বিদায়ী সম্বর্ধনা দিতে চাই ২০০ আসন

মমতা বড় বিদায়ী সম্বর্ধনা দিতে চাই ২০০ আসন

এদিন অমিত শাহ বলেন, ১০ বছর ক্ষমতায় থাকা পরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বড় ধরনের বিদায়ী সম্বর্ধনা প্রাপ্য। তার জন্যই তিনি একটা অনুরোধ রাখতে চান। জনগণ দিদিকে বড় বিদায়ী সম্বর্ধনা দিতে পারে। সেটা একমাত্র সম্ভব বিজেপিকে ২০০ আসন দিলে পরেই। বসিরহাট দক্ষিণ কেন্দ্রে প্রচারে গিয়ে এমনটাই মন্তব্য করেছেন অমিত শাহ।

কোচবিহারের গুলি চালনায় ঘটনায় শাহের পদত্যাগ দাবি

কোচবিহারের গুলি চালনায় ঘটনায় শাহের পদত্যাগ দাবি

শনিবারের পরে রবিবারও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোচবিহারের শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে ৪ জনের মৃত্যুর ঘটনায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের পদত্যাগ দাবি করেছেন। তিনি অভিযোগ করেছিলেন, অমিত শাহই নির্বাচন কমিশনের পাশাপাশি কেন্দ্রীয় বাহিনীকে নিয়ন্ত্রণ করছেন। অমিত শাহই কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঢাল করে ষড়যন্ত্রের জাল বুনছেন বলে অভিযোগ করেছিলেন। এদিন সকালে কোচবিহারের ঘটনাকে গণহত্যা বলেও অভিযোগ করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মমতার দাবিতে সাড়া অমিত শাহের

মমতার দাবিতে সাড়া অমিত শাহের

এদিন অমিত শাহ বলেছেন, দিদিকে ২ মে পদত্যাগপত্র দিতে যেতে হবে রাজ্যপালের কাছে। তিনি আরও বলেছেন, দিদি বারবার বলছেন, অমিত শাহ ইস্তফা দিন। এব্যাপারে তিনি বলেছেন, দিদি, যখন জনগণ তাঁকে বলতে, তখন তিনি ইস্তফা দেবেন। কিন্তু দিদিকেই আগে ইস্তফার জন্য তৈরি থাকতে বলেছেন অমিত শাহ।

দিদি চান ভাইপোর উন্নতি

দিদি চান ভাইপোর উন্নতি

অমিত শাহ এদিন বলেছেন, বাংলার মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। কেননা মোদীজি চান বাংলার মানুষের উন্নতি, আর দিদি চান ভাইপোর উন্নতি। ভাইপোর কল্যাণের জন্য যা যা করার দরকার তাই তাই করে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাংলার মানুষের উন্নতির জন্য দিদিকে সরিয়ে বিজেপিকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

শীতলকুচির ঘটনার জন্য দায়ী মমতাই

শীতলকুচির ঘটনার জন্য দায়ী মমতাই

কোচবিহারের শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলি চালনার ঘটনায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই দায়ী করেছেন অমিত শাহ। এদিন তিনি বলেছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোচবিহারের সভাতেই যুবক এবং মহিলাদের এগিয়ে এসে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঘেরাও করার পরামর্শ দিয়েছিলেন। এই মৃত্যুতেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তুষ্টিকরণের রাজনীতি করছেন বলে অভিযোগ করেছেন অমিত শাহ। কেননা, একই দিনে একই কেন্দ্রে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছিল, তাঁর নাম আনন্দ বর্মন। তাঁর জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোনও শ্রদ্ধাঞ্জলী দেননি।






Source link