ভোট কেন্দ্রে মিমিকে নিয়ে সেলফি, পোলিং অফিসারকে সরালো কমিশন, Election Commission removes Polling officer who takes selfi with TMC’s Mimi Chakraborty in Jalpaiguri

Share Now





West Bengal Election : ভোট দিলেন অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী

জলপাইগুড়ি সদরের ভোটার মিমি

জলপাইগুড়ি সদরের ভোটার মিমি

যাদবপুরের সাংসদ হলেও, জলপাইগুড়ি সদরের ভোটার মিমি চক্রবর্তী। সেই মতো এদিন দুপুরে তিনি ভোট দিতে গিয়েছিলেন জলপাইগুড়ির পান্ডাপাড়া জুনিয়র বেসিক স্কুলের ১৭/১৫৫ নম্বর বুথে। সেখানে তিনি কোভিড প্রোটোকল মেনে থার্মাল চেকিং করেই ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে ঢোকেন তিনি।

আঁতকে ওঠেন মিমি

আঁতকে ওঠেন মিমি

ভোট দিয়ে বেরনোর সময়েই আঁতকে ওঠেন মিমি চক্রবর্তী। কেননা সেই সময়ে বুথের ভোটকর্মীরা তাঁকে ঘিরে ধরে সেলফি তুলতে শুরু করেন। সেই দেখে আঁতকে উঠে মিমি বলেন, আরে করছেন টা কী! এমনটা করলে তাঁর (মিমি) চাকরি যাবে, আর সঙ্গে বুথ কর্মীরাও সমস্যায় পড়বেন। এই সময় ভোট কর্মীরা সরে যান।

 বুথেই ফোনে ব্যস্ত ভোটকর্মী

বুথেই ফোনে ব্যস্ত ভোটকর্মী

অভিযোগ মিমি চক্রবর্তী চলে যাওয়ার পরে তাঁর সঙ্গে সেলফি তোলা ভোটকর্মী মোবাইল ফোন নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। বিষয়টি নজরে আসতেই তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন অন্যরা। খবর যায় নির্বাচন কমিশনে। এব্যাপারে উল্লেখ্য যে ভোট চলাকালীন বুথে কোনও তারকা এলে, তাঁর সঙ্গে ছবি তোলা কিংবা মোবাইল ব্যবহার নিয়েও আলাদা নিয়ম রয়েছে। বুথের খবর দেওয়া-নেওয়া করতে ভোটকর্মীরা মোবাইল ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু কোনও ব্যক্তিগত কাজে তা ব্যবহার করা যায় না। ফলে ভোটকর্মীদের ওই কাজ নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে।

অপসারিত সেকেন্ড পোলিং অফিসার

অপসারিত সেকেন্ড পোলিং অফিসার

ওই ঘটনায় আইন না মানা নিয়ে ক্ষুব্ধ হন জেলার নির্বাচনী আধিকারিক মৌমিতা গোদারা বসু। তিনি জানিয়েও দেন, ছবি তুলে ভোটকর্মী কিংবা ভোটকর্মীরা করেছেন তা আইন বিরুদ্ধ। পরে সেকেন্ড পোলিং অফিসারকে সরিয়ে দেয় কমিশন। তাঁর জায়গায় নতুন ভোটকর্মীকে নিয়োগ করা হয়।






Source link