খামখেয়ালি ও যুক্তিহীন টিকানীতি, কেন্দ্রকে ভর্ৎসনা Supreme Court-র

Share Now





নিজস্ব প্রতিবেদন: বিনামূল্যে টিকা দেওয়া হচ্ছে ৪৫ বছরের ঊর্ধ্বে ব্যক্তিদের। তবে ১৮ থেকে ৪৪ বছরের ক্ষেত্রে লাগছে টাকা। কেন্দ্রীয় সরকারের এই ‘দ্বি-নীতি’ নিয়ে প্রশ্ন তুলল সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। আদালতের পর্যবেক্ষণ, ‘এটা খামখেয়ালি ও যুক্তিহীন সিদ্ধান্ত’। মামলার পরবর্তী শুনানি ৩০ জুন। 

কেন্দ্রীয় সরকার সুপ্রিম কোর্টকে (Supreme Court) জানিয়েছে, চলতি বছর ডিসেম্বরের আগেই গোটা দেশে টিকাকরণ সম্পূর্ণ করে ফেলা হবে। এই দাবির বাস্তবায়ন নিয়ে সংশয়ে বিরোধীরা। তবে টিকার অভাব, বঞ্চিত গ্রামের মানুষ- কেন্দ্রের টিকাকরণ নীতিতে একাধিক গলদ রয়েছে বলে মনে করে আদালত। তা পর্যালোচনার নির্দেশও দিয়েছেন বিচারপতিরা। এর পাশাপাশি ৩১ ডিসেম্বরের আগে কীভাবে টিকার ঘাটতি মেটানো হবে, তার পরিকল্পনা জানাতে হবে সরকারকে। 

টিকার দামের তারতম্য নিয়েও জানতে চেয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। ভারত ও আন্তর্জাতিকস্তরে টিকার দরের তুল্যমূল্য রিপোর্ট জমা দিতে কেন্দ্রকে নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়, এলএন রাও ও এস রবীন্দ্র ভাটের বেঞ্চ পর্যবেক্ষণ, অতিমারির প্রকৃতি বদলাচ্ছে। যুবকরাও আর নিরাপদ নন। ফলে টিকাকরণ জরুরি। যদিও বৈজ্ঞানিক ভিত্তিতে অগ্রাধিকার ঠিক করা হয়েছে। প্রথম দুদফায় বিনামূল্যে টিকা দিয়েছে কেন্দ্র। সেই নিয়ম বদলেছে ১৮ থেকে ৪৪ বছরের টিকাকরণের ক্ষেত্রে। এটা একতরফা ও অযৌক্তিক সিদ্ধান্ত।”

প্রসঙ্গত, ১ মে থেকে ১৮ থেকে ৪৪ বছরের নাগরিকরা  ভ্যাকসিন পাচ্ছেন। তবে তাঁদের টিকার দাম দিয়ে টিকা নিতে হচ্ছে। প্রায় সব রাজ্যই বিনামূল্যে টিকাকরণ চালু করেছে। ফলে তাদের ভ্যাকসিন কিনতে হচ্ছে। কেন্দ্রকে ফ্রি-তে ভ্যাকসিন দেওয়ার দাবি করেছে রাজ্যগুলি। এ দিনও সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ভ্যাকসিন কিনে রাজ্যগুলিকে নিখরচায় দেওয়া কেন্দ্রের দায়িত্ব। 

আরও পড়ুন-ফ্রি টিকা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে ফোন নবীনের, চিঠি বিজয়নের, সম্মতি Mamata-র







Source link