অবিলম্বে সরকারি কর্মীদের টিকাকরণ করুন, ২০ লাখ ভ্যাকসিন চেয়ে মোদীকে চিঠি মমতার – cm mamata banerjee writes a letter to pm modi for vaccination

Share Now





এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: সকালের বৈঠকের পরই ২০ লাখ ভ্যাকসিন চেয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীকে লেখা এই চিঠি মমতা বলেছেন, দ্রুত সরকারি কর্মীদের টিকাকরণের ব্যবস্থা করা হোক। তারা পরিষেবা দেওয়ার জন্য প্রতিদিন বহু মানুষের সংস্পর্শে আসেন। করোনা থেকে তাদের বাঁচাতে এবং অত্যাবশকীয় পরিষেবা অবিছিন্ন রাখতে দ্রুত টিকাকরণের প্রয়োজন।

উল্লেখ্য, এদিনের চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রী শুধুমাত্র রাজ্যের সরকারি কর্মচারীদের জন্যই নয়, কেন্দ্রীয় কর্মচারীদেরও টিকাকরণ সম্পূর্ণ করার উপর জোর দেন। দেশের সব কটি রাজ্যকেই দ্রুত ওই টিকা সরবরাহ করার অনুরোধ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ভোটের সময়ে কিছু সরকারি কর্মচারী টিকা পেলেও বাকি সরকারি কর্মচারীদের টিকাকরণ সম্পূর্ণ করার জন্য আরও ২০ লাখ টিকা প্রয়োজন বলে চিঠিতে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বাতিল নয় মাধ্যমিক উচ্চমাধ্যমিক, পরীক্ষা হবেই: শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু

এদিন সকালেই বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ ১০ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের নিয়ে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বৈঠক শেষে এদিন নবান্নে মমতা বললেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীদের আমন্ত্রণ জানিয়ে, তাঁদের কথা বলতে দেওয়া হয়নি সৌজন্য বিনিময়ও করেননি। করোনা পরিস্থিতিতে আমাদের দাবিদাওয়া নিয়ে উপস্থিত ছিলাম। কাউকে ১ সেকেন্ডের জন্য কথা বলতে দেওয়া হয়নি। পছন্দমতো জেলাশাসকদের সঙ্গে কথা বলেন। আর ভাষণ দেন। সুপার ফ্লপ মিটিং। করোনা নিয়ে এত ক্যাজুয়েল বৈঠক! আমরা অপমানিত হয়েছি। পুতুলের মতো বসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। আজ যা হয়েছে তা স্বৈরতন্ত্র’।

আইন ভেঙে নিজাম প্যালেসের সামনে বিক্ষোভ, গ্রেফতার ৪

মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ভ্যাকসিনের ডোজ নিয়ে একেক রকম কথা বলা হচ্ছে। এর কোনও বৈজ্ঞানিক ভিত্তি রয়েছে? ভ্যাকসিন নেই বলে ব্যবধান বাড়াচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর ফর্মুলা মানলে দেশে ভ্যাকসিন দিতে ১০ বছর সময় লাগবে’। যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয় আজ রাজ্যের অসম্মান হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন মমতা। রাজ্যবাসীর উদ্দেশে মুখ্যমন্ত্রীর আশ্বাস, ‘যোগান থাকলে তিন মাসের মধ্যে সকলকে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।’ মহামারীর সময় প্রতিহিংসার রাজনীতি হচ্ছে বলেও সরব হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।






Source link